মা দুর্গা - চা দুর্গা

মা দুর্গা - চা দুর্গা

আলোক ভরা স্বপ্ন মায়া কাশের ডালি,
বুকের ব্যথা এই আসরে গোপন করে-
বৃষ্টি ঝরে- রৌদ্র পড়ে দু’টি পাতা
একটি কুঁড়ি, শব্দ আঁকে ঝোরার ধারে।

ঘামের ছোঁয়া- কান্না ভরা- চায়ের কাপে
এসব কথা বস্তাপচা, খোলামকুচি।
অনেক হলো এখন বুড়ো ভাম হয়েছি
তহেরি মনের মাঝেই আমি লোক চিনেছি।

ম্যালেরিয়া নিকেষ কালো, অলীক দাওয়া
হাঁড়িয়া পানি, সাদা গোলি রুগনো আঁধার।
মোংরা, বুধু চইল গেলাক নিঁদের দেশে
শপিং মলে এক্সকালেটর ডবলি বাজার।

তোদের টিউন হয় না কপি স্টার দাবায়ে।
প্রাণের মাদল শরৎ বেলায় উদাম সুরে,
নট রিচেবল একটি কাউয়া ঝাপটে ডানা
বন্ধ বাগান থেকে পালায় অনেক দূরে।

লাভের গুড় ও.এম.সি. খায় আঙ্গুল চেটে
হিস‌্সা মেলে কিছু কিছু নেতা দাদার।
শোষণহীনের খোয়াব যারা করতো ফেরি
ফুর্তিলোটে অনেকভাবে আজকে দেদার।

যোজনার সোনার বাটি মাখন ননী
ভরছে ঝুলি অন্নোদয়, মিডডে মিলে,
লাল-সবুজে দারুণ মিল খাবার বেলায়
‘ওয়াক্ত কী আওয়াজ হ্যায় মিলকে চলে’।  

কাজের আশায় ভিন রাজ্যের চাপছে গাড়ি
দোপাট্টাতে চোখটি মোছে তার প্রেমিকা,
পকেট ভর্তি সুখ আনবে ফেরার সময়
সেই আশাতেই আজকে করুন বেঁচে থাকা।

পরিষদ ও আমলা বসে ঠান্ডা ঘরে
প্রতিশ্রুতি- ‘দেখছি, দেখবো, থাকবে মাথায়’
সভার শেষে হাত মেলানো চওড়া হাসি,
ছবি ছাপে পত্রিকাতে পাতায় পাতায়।

বোনাস হাটে মাঙ্গনেয়ালা চাঁদার রসিদ
ঢিসের কোর্টে ঝান্ডা- পানা- জাহাজ ঘোরে,
ঘামের ফসল বিকোয় হেথায় নিলাম ছাড়া
ফাঁকতালেতে নেপোয় এসে দইটি মারে।

রামরাজ্য বইতে আছে বাম রাজ্যে,
সসীম সবুজ এই সাগরে, তুলো মেঘে
ঝঞ্ঝা নামুক ডুবতে যে চাই পঞ্চভূতে
শনচারিয়া হাসছে লালের পতন দেখে।

দশ হাতেতে ধরবি কাকে বল না মা তুই
হিনে আসুর এগো নক্ষে বহুত আহে
নানান রঙে, নানান সাজে, যায় না চেনা
সুযোগ পেলেই সটকে পড়ে ডাইনে বায়ে

আলেক বেণু তান ধরেছে আজ প্রভাতে
হিনে নাইক্ষে মোর বাগিচায় আখরা ধারে
বসবে আসর বাজবে মন্দর- নাগরা-সানহাই
গাইবো মোরা নতুন দিনের অহংকারে।


 

Join our mailing list Never miss an update